বাণিজ্যিক দর্শন

বানিজ্যি স্থাপনা দর্শন

  • <বাণিজ্যিক দর্শন>
    সবাই কে নিয়ে হাসিখুশি আমাদের লক্ষ্য ।
  • <ব্যবস্খাপনা দর্শন>
    কর্পোরেট ব্যবস্থাপনা যে ক্রমাগত বৃদ্ধি এবং উন্নয়ন এর মাধ্যমে আমরা ও সমাজ অবদান রাখতে চাই।
  • <মৌলিক ব্যবস্খাপনা পদ্ধতি>
    উৎপাদনের ধারাবাহিকতা এরং তার উন্নয়নের মধ্যদিয়ে বানিজ্যিক দর্শন সমাজ উন্নয়নে সহায়তা করে।

বাণিজ্যিক দর্শন

আমরা মনে প্রানে বিশ্বাস করি যে এই প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি কর্মী ও তাদের পরিবারকে, সন্মানিত ক্রেতাবৃন্দকে, ব্যবসায়ীক পাটনার সহ সকলের জন্য সুখ এবং এর হাসির মোড়ক পৌঁছে দেওয়াই আমাদের এই প্রতিষ্ঠানের বিশাল মূল্যবান অস্তিত্ব।

আমারা শুধু আর্থিক মুনাফা অর্জনের লক্ষ্যেই নয় বরং প্রত্যেকের সুখ-সমৃদ্ধির কথাও অগ্রাধিকার দিয়ে থাকি।

ব্যবস্খাপনা দর্শন

কর্পোরেট ব্যবস্থাপনা যে ক্রমাগত বৃদ্ধি এবং উন্নয়ন এর মাধ্যমে আমরা ও সমাজ অবদান রাখতে চাই

অনুরুপ ভাবে যে বিষয়গুলো তরল গতিশীল বাজার পরিবেশকে প্রভাবন্বিত করে তা হলো, বাজার নির্ধারণের স্থান, অপ্রয়োজনীয় মূল্য হ্রাস করা, আই টি প্রযুক্তিকে নৈপূণ্যের সাথে কার্যকরী ব্যবহার,কার্য সমাধানে সংঘবদ্ধতা, সঠিক ব্যক্তিকে সঠিক পদে নিয়োগ, মানব সম্পদ উন্নত প্রযুক্তি সন্পন্ন এবং পেশাদারিত্বে উপনিত করা, সম্ভাব্য বাজারে বিনিয়োগ, ব্যবসা প্রসারণায় দক্ষতার সাথে চ্যালেন্জ নেওয়া ইত্যাদি বিষয়াদির ভিত্তিতে সমাজ উন্নয়নে আমাদের প্রতিষ্ঠান বদ্ধপরিকর।

কার্য সমাধানের নির্দেশনা

  1. বিশ্বস্ততা
    ব্যবসায়ীক পাটনার, কর্মী, খরিদ্দার এদের সকলের মধ্যে গভীর বিশ্বস্ততা তৈরী করা।
  2. চ্যালেন্জ
    নির্ভয়ে আত্মিক চ্যালেন্জ গ্রহন করে প্রতিটি ক্ষেত্রে ব্যর্থহীন সফলতা অর্জন।
  3. প্রবৃদ্ধি
    বর্তমান পারিপাশ্বিকতায় আবদ্ধ না থেকে দক্ষতা অর্জনে [আরও স্টাডি] এবং [আরও শিক্ষা] উক্তিতে উদ্ভুত হওয়া।
  4. পেশাদ্বারিত্ব
    পন্যের উন্নত মান এবং পেশাদ্বারিত্ব ও শালীন সভ্য আচরণ বজায় রাখা।
  5. বিশ্বব্যাপী ও স্থানীয়
    স্থান, অবস্থা ও পাত্র বিশেষের মনোবৃত্তির সাথে সংগতিপূর্ণ হওয়া।
  6. নিয়ম বা আইনের প্রতি সন্মান
    সামাজিক রীতি নীতির প্রতি অনুগত থাকা।